শিরোনাম :
প্রচ্ছদ / Top 10 / কুরআনে রাসূলের আনুগত্য, অনুসরণ, মানা

কুরআনে রাসূলের আনুগত্য, অনুসরণ, মানা

>>>> কুরআনে রাসূলের আনুগত্য, অনুসরণ, মানা <<<<
আল্লাহর আনুগত্য করা প্রত্যেক মানুষের জন্য যেমন ফরয, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর আনুগত্য করা প্রত্যেক মানুষের জন্য তেমন ফরয। আল্লাহ বলেন-
ﻣَﻦْ ﻳُﻄِﻊِ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝَ ﻓَﻘَﺪْ ﺃَﻃَﺎﻉَ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﻣَﻦْ ﺗَﻮَﻟَّﻰ ﻓَﻤَﺎ ﺃَﺭْﺳَﻠْﻨَﺎﻙَ ﻋَﻠَﻴْﻬِﻢْ ﺣَﻔِﻴﻈًﺎ
যে রাসুলের আনুগত্য করল সে অবশ্যই আল্লাহর আনুগত্য করল আর যে মুখ ফিরিয়ে নিল তবে আমি তোমাকে তাদের উপর পাহারাদার করে পাঠাইনি। আন-নিসা, ৪/৮০
ﻳَﺎ ﺃَﻳُّﻬَﺎ ﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﺁﻣَﻨُﻮﺍ ﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝَ ﻭَﻻ ﺗُﺒْﻄِﻠُﻮﺍ ﺃَﻋْﻤَﺎﻟَﻜُﻢْ
হে মুমিনগণ, আল্লাহর আনুগত্য কর ও রাসূলের আনুগত্য কর, আর তোমরা তোমাদের আমলগুলোকে নষ্ট করে দিও না। মুহাম্মাদ, ৪৭/৩৩
ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝَ ﻟَﻌَﻠَّﻜُﻢْ ﺗُﺮْﺣَﻤُﻮﻥَ
আর আল্লাহর ও রাসূলের আনুগত্য কর যাতে তোমরা রহমতপ্রাপ্ত হও। আলে-ইমরান, ৩/১৩২
ﻭَﺃَﻗِﻤْﻦَ ﺍﻟﺼَّﻼﺓَ ﻭﺁﺗِﻴﻦَ ﺍﻟﺰَّﻛَﺎﺓَ ﻭَﺃَﻃِﻌْﻦَ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟَﻪُ
আর সালাত কায়েম কর ও যাকাত প্রদান কর এবং আল্লাহর ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য কর। আল-আহযাব, ৩৩/৩৩

ﻭَﺃَﻗِﻴﻤُﻮﺍ ﺍﻟﺼَّﻼﺓَ ﻭَﺁﺗُﻮﺍ ﺍﻟﺰَّﻛَﺎﺓَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝَ ﻟَﻌَﻠَّﻜُﻢْ ﺗُﺮْﺣَﻤُﻮﻥَ
আর সালাত কায়েম কর ও যাকাত প্রদান কর এবং রাসূলের আনুগত্য কর যাতে তোমরা রহমতপ্রাপ্ত হও। আন-নুর, ২৪/৫৬
ﻓَﺄَﻗِﻴﻤُﻮﺍ ﺍﻟﺼَّﻼﺓَ ﻭَﺁﺗُﻮﺍ ﺍﻟﺰَّﻛَﺎﺓَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟَﻪُ ﻭَﺍﻟﻠَّﻪُ ﺧَﺒِﻴﺮٌ ﺑِﻤَﺎ ﺗَﻌْﻤَﻠُﻮﻥَ
অতঃপর সালাত কায়েম কর আর যাকাত প্রদান কর এবং আল্লাহর আনুগত্য কর ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য কর এবং তোমরা যা কর সম্পর্কে আল্লাহ সে পুরাপুরি অবগত। আল-মুজাদালা, ৫৮/১৩
>>> রাসূলের আনুগত্য করার উদ্দেশ্যেই আল্লাহ বলে দিয়েছেন <<<
ﻭَﻣَﺎ ﺃَﺭْﺳَﻠْﻨَﺎ ﻣِﻦْ ﺭَﺳُﻮﻝٍ ﺇِﻻ ﻟِﻴُﻄَﺎﻉَ ﺑِﺈِﺫْﻥِ ﺍﻟﻠَّﻪِ
আর আমি রাসূল শুধুমাত্র এই উদ্দেশ্যেই প্রেরণ করেছি যেন আল্লাহর নির্দেশে তাঁর আনুগত্য করা হয়। আন-নিসা, ৪/৬৪
>>> সকল মানুষকে রাসূলের আনুগত্য করতে হবে <<<
ﻭَﻣَﺎ ﺃَﺭْﺳَﻠْﻨَﺎﻙَ ﺇِﻻ ﻛَﺎﻓَّﺔً ﻟِﻠﻨَّﺎﺱِ ﺑَﺸِﻴﺮًﺍ ﻭَﻧَﺬِﻳﺮًﺍ ﻭَﻟَﻜِﻦَّ ﺃَﻛْﺜَﺮَ ﺍﻟﻨَّﺎﺱِ ﻻ ﻳَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ
আর আমি তোমাকে কেবলমাত্র সমগ্র মানব জাতির জন্য সুসংবাদদাতা ও সতর্ককারী হিসেবে প্রেরণ করেছি; কিন্ত অধিকাংশ মানুষ জানে না। সাবা, ৩৪/২৮
>>> রাসূলের আনুগত্য করা শুধু তাঁর জীবন পর্যন্ত সীমাবদ্ধ নয় বরং কিয়ামত পর্যন্ত সকল মানুষের উপর ফরয <<<
ﻗُﻞِ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﺷَﻬِﻴﺪٌ ﺑَﻴْﻨِﻲ ﻭَﺑَﻴْﻨَﻜُﻢْ ﻭَﺃُﻭﺣِﻲَ ﺇِﻟَﻲَّ ﻫَﺬَﺍ ﺍﻟْﻘُﺮْﺁﻥُ ﻷﻧْﺬِﺭَﻛُﻢْ ﺑِﻪِ ﻭَﻣَﻦْ ﺑَﻠَﻎَ
(হে রাসূল) তুমি বলে দাও, আল্লাহ আমার ও তোমাদের মধ্যে সাক্ষী আর আমার কাছে এই কুরআন ওহীর মাধ্যমে পাঠানো হয়েছে, যেন আমি তোমাদেরকে এবং যাদের নিকট এটি পৌঁছবে তাদের সকলকে এর দ্বারা সতর্ক করি। আল-আন‘আম, ৬/১৯
>>> রাসুল মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছিলেন, “আমার অনুসরণ কর” <<<
ﻗُﻞْ ﺇِﻥْ ﻛُﻨْﺘُﻢْ ﺗُﺤِﺒُّﻮﻥَ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻓَﺎﺗَّﺒِﻌُﻮﻧِﻲ ﻳُﺤْﺒِﺒْﻜُﻢُ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻭَﻳَﻐْﻔِﺮْ ﻟَﻜُﻢْ ﺫُﻧُﻮﺑَﻜُﻢْ ﻭَﺍﻟﻠَّﻪُ ﻏَﻔُﻮﺭٌ ﺭَﺣِﻴﻢٌ
(হে নবী) আপনি বলুন, ‘যদি তোমরা আল্লাহকে ভালবাস, তাহলে আমার অনুসরণ কর, আল্লাহ তোমাদেরকে ভালবাসবেন এবং তোমাদের পাপসমূহ ক্ষমা করে দেবেন আর আল্লাহ অত্যন্ত ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু’। আলে-ইমরান, ৩/৩১
>>> সকল নবীগণের একই আহবান ছিল “আমার অনুসরণ কর” <<<
ﻓَﺎﺗَّﻘُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﻥِ
(নুহ, হুদ, সোলেহ, লুত, শুয়াইব, ঈসা আলাইহিস সালাম বলেছিল) সুতরাং তোমরা আল্লাহকে ভয় কর আর আমার অনুসরণ কর। আশ-শুরা, ২৬/১০৮, ১১০, ১২৬, ১৩১, ১৪৪, ১৫০, ১৬৩, ১৭৯, ৩/৫০, ৪৩/৬৩
ﺃَﻥِ ﺍﻋْﺒُﺪُﻭﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺍﺗَّﻘُﻮﻩُ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﻥِ
(নুহ আলাইহিস সালাম বলেছিল) এই বিষয় যে, তোমরা আল্লাহর ইবাদত কর, তাঁকে ভয় কর আর আমার অনুসরণ কর। নুহ, ৭১/৩
ﺇِﺫْ ﻗَﺎﻝَ ﻟَﻬُﻢْ ﺃَﺧُﻮﻫُﻢْ ﻧُﻮﺡٌ ﺃَﻻ ﺗَﺘَّﻘُﻮﻥَ ﺇِﻧِّﻲ ﻟَﻜُﻢْ ﺭَﺳُﻮﻝٌ ﺃَﻣِﻴﻦٌ ﻓَﺎﺗَّﻘُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﻥِ ﻭَﻣَﺎ ﺃَﺳْﺄَﻟُﻜُﻢْ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻣِﻦْ ﺃَﺟْﺮٍ ﺇِﻥْ ﺃَﺟْﺮِﻱَ ﺇِﻻ ﻋَﻠَﻰ ﺭَﺏِّ ﺍﻟْﻌَﺎﻟَﻤِﻴﻦَ ﻓَﺎﺗَّﻘُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﻥِ
যখন তাদের ভাই নূহ তাদেরকে বলেছিল, “তোমরা কি আল্লাহকে ভয় করবে না? নিশ্চয়ই আমি তোমাদের জন্য একজন বিশ্বস্ত রাসুল। তাই তোমরা আল্লাহকে ভয় কর আর আমার অনুসরণ কর। আর আমি তোমাদের নিকট এর জন্য কোন প্রতিদান চাই না; আমার প্রতিদান শুধুমাত্র বিশ্বজগতের প্রতিপালকের কাছেই আছে। সুতরাং তোমরা আল্লাহকে ভয় কর আর আমার অনুসরণ কর”। আশ-শু‘আরা, ২৬/১০৬-১১০
ﺇِﺫْ ﻗَﺎﻝَ ﻟَﻬُﻢْ ﺃَﺧُﻮﻫُﻢْ ﻫُﻮﺩٌ ﺃَﻻ ﺗَﺘَّﻘُﻮﻥَ ﺇِﻧِّﻲ ﻟَﻜُﻢْ ﺭَﺳُﻮﻝٌ ﺃَﻣِﻴﻦٌ ﻓَﺎﺗَّﻘُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﻥِ ﻭَﻣَﺎ ﺃَﺳْﺄَﻟُﻜُﻢْ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻣِﻦْ ﺃَﺟْﺮٍ ﺇِﻥْ ﺃَﺟْﺮِﻱَ ﺇِﻻ ﻋَﻠَﻰ ﺭَﺏِّ ﺍﻟْﻌَﺎﻟَﻤِﻴﻦَ ﻓَﺎﺗَّﻘُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﻥِ
যখন তাদের ভাই হুদ তাদেরকে বলেছিল, “তোমরা কি আল্লাহকে ভয় করবে না? নিশ্চয়ই আমি তোমাদের জন্য একজন বিশ্বস্ত রাসুল। তাই তোমরা আল্লাহকে ভয় কর আর আমার অনুসরণ কর। আর আমি তোমাদের নিকট এর জন্য কোন প্রতিদান চাই না; আমার প্রতিদান শুধুমাত্র বিশ্বজগতের প্রতিপালকের কাছেই আছে। সুতরাং তোমরা আল্লাহকে ভয় কর আর আমার অনুসরণ কর”। আশ-শু‘আরা, ২৬/১২৪-১২৭, ১৩১
ﺇِﺫْ ﻗَﺎﻝَ ﻟَﻬُﻢْ ﺃَﺧُﻮﻫُﻢْ ﺻَﺎﻟِﺢٌ ﺃَﻻ ﺗَﺘَّﻘُﻮﻥَ ﺇِﻧِّﻲ ﻟَﻜُﻢْ ﺭَﺳُﻮﻝٌ ﺃَﻣِﻴﻦٌ ﻓَﺎﺗَّﻘُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﻥِ ﻭَﻣَﺎ ﺃَﺳْﺄَﻟُﻜُﻢْ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻣِﻦْ ﺃَﺟْﺮٍ ﺇِﻥْ ﺃَﺟْﺮِﻱَ ﺇِﻻ ﻋَﻠَﻰ ﺭَﺏِّ ﺍﻟْﻌَﺎﻟَﻤِﻴﻦَ ﻓَﺎﺗَّﻘُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﻥِ
যখন তাদের ভাই সালেহ তাদেরকে বলেছিল, “তোমরা কি আল্লাহকে ভয় করবে না? নিশ্চয়ই আমি তোমাদের জন্য একজন বিশ্বস্ত রাসুল। তাই তোমরা আল্লাহকে ভয় কর আর আমার অনুসরণ কর। আর আমি তোমাদের নিকট এর জন্য কোন প্রতিদান চাই না; আমার প্রতিদান শুধুমাত্র বিশ্বজগতের প্রতিপালকের কাছেই আছে। সুতরাং তোমরা আল্লাহকে ভয় কর আর আমার অনুসরণ কর”। আশ-শু‘আরা, ২৬/১৪২-১৪৫, ১৫০
ﺇِﺫْ ﻗَﺎﻝَ ﻟَﻬُﻢْ ﺃَﺧُﻮﻫُﻢْ ﻟُﻮﻁٌ ﺃَﻻ ﺗَﺘَّﻘُﻮﻥَ ﺇِﻧِّﻲ ﻟَﻜُﻢْ ﺭَﺳُﻮﻝٌ ﺃَﻣِﻴﻦٌ ﻓَﺎﺗَّﻘُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﻥِ ﻭَﻣَﺎ ﺃَﺳْﺄَﻟُﻜُﻢْ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻣِﻦْ ﺃَﺟْﺮٍ ﺇِﻥْ ﺃَﺟْﺮِﻱَ ﺇِﻻ ﻋَﻠَﻰ ﺭَﺏِّ ﺍﻟْﻌَﺎﻟَﻤِﻴﻦَ
যখন তাদের ভাই লুত তাদেরকে বলেছিল, “তোমরা কি আল্লাহকে ভয় করবে না? নিশ্চয়ই আমি তোমাদের জন্য একজন বিশ্বস্ত রাসুল। তাই তোমরা আল্লাহকে ভয় কর আর আমার অনুসরণ কর। আর আমি তোমাদের নিকট এর জন্য কোন প্রতিদান চাই না; আমার প্রতিদান শুধুমাত্র বিশ্বজগতের প্রতিপালকের কাছেই আছে”। আশ-শু‘আরা, ২৬/১৬১-১৬৪
ﺇِﺫْ ﻗَﺎﻝَ ﻟَﻬُﻢْ ﺷُﻌَﻴْﺐٌ ﺃَﻻ ﺗَﺘَّﻘُﻮﻥَ ﺇِﻧِّﻲ ﻟَﻜُﻢْ ﺭَﺳُﻮﻝٌ ﺃَﻣِﻴﻦٌ ﻓَﺎﺗَّﻘُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﻥِ ﻭَﻣَﺎ ﺃَﺳْﺄَﻟُﻜُﻢْ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻣِﻦْ ﺃَﺟْﺮٍ ﺇِﻥْ ﺃَﺟْﺮِﻱَ ﺇِﻻ ﻋَﻠَﻰ ﺭَﺏِّ ﺍﻟْﻌَﺎﻟَﻤِﻴﻦَ
যখন তাদের ভাই শু‘আইব তাদেরকে বলেছিল, “তোমরা কি আল্লাহকে ভয় করবে না? নিশ্চয়ই আমি তোমাদের জন্য একজন বিশ্বস্ত রাসুল। তাই তোমরা আল্লাহকে ভয় কর আর আমার অনুসরণ কর। আর আমি তোমাদের নিকট এর জন্য কোন প্রতিদান চাই না; আমার প্রতিদান শুধুমাত্র বিশ্বজগতের প্রতিপালকের কাছেই আছে”। আশ-শু‘আরা, ২৬/১৭৭-১৮০
>>>> রাসূলের দায়িত্ব সুস্পষ্টভাবে পৌঁছে দেয়া <<<<
ﻳَﺎ ﺃَﻳُّﻬَﺎ ﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﺁﻣَﻨُﻮﺍ ﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟَﻪُ ﻭَﻻ ﺗَﻮَﻟَّﻮْﺍ ﻋَﻨْﻪُ ﻭَﺃَﻧْﺘُﻢْ ﺗَﺴْﻤَﻌُﻮﻥَ
হে মুমিনগণ, আল্লাহর ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য কর আর শুনার পর তা থেকে মুখ তোমরা ফিরিয়ে নিও না। আন-আনফাল, ৮/২০
ﻗُﻞْ ﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝَ ﻓَﺈِﻥْ ﺗَﻮَﻟَّﻮْﺍ ﻓَﺈِﻥَّ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻻ ﻳُﺤِﺐُّ ﺍﻟْﻜَﺎﻓِﺮِﻳﻦَ
তুমি বল, আল্লাহর ও রাসূলের আনুগত্য কর, যদি তারা মুখ ফিরিয়ে নেয় নিশ্চয় আল্লাহ অবিশ্বাসীদেরকে ভালবাসেন না। আলে-ইমরান, ৩/৩২
ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝَ ﻓَﺈِﻥْ ﺗَﻮَﻟَّﻴْﺘُﻢْ ﻓَﺈِﻧَّﻤَﺎ ﻋَﻠَﻰ ﺭَﺳُﻮﻟِﻨَﺎ ﺍﻟْﺒَﻼﻍُ ﺍﻟْﻤُﺒِﻴﻦُ
আর আল্লাহর আনুগত্য কর ও রাসূলের আনুগত্য কর যদি তোমরা মুখ ফিরিয়ে নাও, তবে আমার রাসূলের দায়িত্ব সুস্পষ্টভাবে বাণী পৌঁছে দেয়া। আত-তাগাবুন, ৬৪/১২
ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝَ ﻭَﺍﺣْﺬَﺭُﻭﺍ ﻓَﺈِﻥْ ﺗَﻮَﻟَّﻴْﺘُﻢْ ﻓَﺎﻋْﻠَﻤُﻮﺍ ﺃَﻧَّﻤَﺎ ﻋَﻠَﻰ ﺭَﺳُﻮﻟِﻨَﺎ ﺍﻟْﺒَﻼﻍُ ﺍﻟْﻤُﺒِﻴﻦُ
এবং আল্লাহর আনুগত্য কর ও রাসূলের আনুগত্য কর আর সাবধান হও তবে যদি তোমরা মুখ ফিরিয়ে নাও তবে জেনে রাখ যে, আমার রাসূলের দায়িত্ব সুস্পষ্টভাবে বাণী পৌঁছে দেয়া। আল-মায়েদা, ৫/৯২
ﻗُﻞْ ﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝَ ﻓَﺈِﻥْ ﺗَﻮَﻟَّﻮْﺍ ﻓَﺈِﻧَّﻤَﺎ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻣَﺎ ﺣُﻤِّﻞَ ﻭَﻋَﻠَﻴْﻜُﻢْ ﻣَﺎ ﺣُﻤِّﻠْﺘُﻢْ ﻭَﺇِﻥْ ﺗُﻄِﻴﻌُﻮﻩُ ﺗَﻬْﺘَﺪُﻭﺍ ﻭَﻣَﺎ ﻋَﻠَﻰ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝِ ﺇِﻻ ﺍﻟْﺒَﻼﻍُ ﺍﻟْﻤُﺒِﻴﻦُ
তুমি বল, আল্লাহর আনুগত্য কর ও রাসূলের আনুগত্য কর তবে যদি তোমরা মুখ ফিরিয়ে নাও তাহলে তাঁর উপর অর্পিত দায়িত্বের জন্য সে দায়ী আর তোমাদের উপর অর্পিত দায়িত্বের জন্য তোমরা দায়ী আর যদি তোমরা তাঁর আনুগত্য কর তাহলে তোমরা সঠিক পথ পাবে আর রাসূলের দায়িত্ব শুধুমাত্র সুস্পষ্টরূপে পৌছে দেয়া। আন-নুর, ২৪/৫৪
>>> রাসূলের অনুসারীদের বক্তব্য <<<
ﺭَﺑَّﻨَﺎ ﺁﻣَﻨَّﺎ ﺑِﻤَﺎ ﺃَﻧْﺰَﻟْﺖَ ﻭَﺍﺗَّﺒَﻌْﻨَﺎ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝَ ﻓَﺎﻛْﺘُﺒْﻨَﺎ ﻣَﻊَ ﺍﻟﺸَّﺎﻫِﺪِﻳﻦَ
হে আমাদের রব! আপনি যা নাযিল করেছেন আমরা তার প্রতি ঈমান এনেছি এবং আমরা রাসূলকে অনুসরণ করছি, তাই আমাদের নাম সাক্ষ্যদাতাদের সাথে লিপিবদ্ধ করুন। আলে-ইমরান, ৩/৫৩
ﺇِﻧَّﻤَﺎ ﻛَﺎﻥَ ﻗَﻮْﻝَ ﺍﻟْﻤُﺆْﻣِﻨِﻴﻦَ ﺇِﺫَﺍ ﺩُﻋُﻮﺍ ﺇِﻟَﻰ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟِﻪِ ﻟِﻴَﺤْﻜُﻢَ ﺑَﻴْﻨَﻬُﻢْ ﺃَﻥْ ﻳَﻘُﻮﻟُﻮﺍ ﺳَﻤِﻌْﻨَﺎ ﻭَﺃَﻃَﻌْﻨَﺎ ﻭَﺃُﻭﻟَﺌِﻚَ ﻫُﻢُ ﺍﻟْﻤُﻔْﻠِﺤُﻮﻥَ
মুমিনদেরকে যখন আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের দিকে এ মর্মে আহবান করা হয়, তিনি তাদের মধ্যে বিচার-মীমাংসা করবেন, তাদের কথা এই যে, তখন তারা বলে “আমরা শুনলাম ও মেনে নিলাম”, আর তারাই সফলকাম। আন-নুর, ২৪/৫১
>>> রাসূলের অনুসারীদের দায়িত্ব <<<
ﻗُﻞْ ﻫَﺬِﻩِ ﺳَﺒِﻴﻠِﻲ ﺃَﺩْﻋُﻮ ﺇِﻟَﻰ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﻋَﻠَﻰ ﺑَﺼِﻴﺮَﺓٍ ﺃَﻧَﺎ ﻭَﻣَﻦِ ﺍﺗَّﺒَﻌَﻨِﻲ ﻭَﺳُﺒْﺤَﺎﻥَ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﻭَﻣَﺎ ﺃَﻧَﺎ ﻣِﻦَ ﺍﻟْﻤُﺸْﺮِﻛِﻴﻦَ
(হে নবী) তুমি বল, এটা আমার পথ; আমি জেনে-বুঝে আল্লাহর দিকে দাওয়াত দেই এবং যারা আমার অনুসরণ করে তারাও আর আল্লাহ পবিত্র, মহান এবং আমি মুশরিকদের অন্তর্ভুক্ত নই। ইউসূফ, ১২/১০৮
>>>> রাসূলের অনুসারীগণ সফলকাম <<<<
ﻭَﻣَﻦْ ﻳُﻄِﻊِ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟَﻪُ ﻭَﻳَﺨْﺶَ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﻳَﺘَّﻘْﻪِ ﻓَﺄُﻭﻟَﺌِﻚَ ﻫُﻢُ ﺍﻟْﻔَﺎﺋِﺰُﻭﻥَ
আর যে আল্লাহর ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য করে ও আল্লাহকে ভয় করে এবং তাঁর অবাধ্যতা পরিহার করে চলে, ফলে তারাই সফলকাম। আন-নুর, ২৪/৫২
ﻭَﺇِﻥْ ﺗُﻄِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟَﻪُ ﻻ ﻳَﻠِﺘْﻜُﻢْ ﻣِﻦْ ﺃَﻋْﻤَﺎﻟِﻜُﻢْ ﺷَﻴْﺌًﺎ ﺇِﻥَّ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻏَﻔُﻮﺭٌ ﺭَﺣِﻴﻢٌ
আর যদি তোমরা আল্লাহর আনুগত্য কর ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য কর তাহলে তোমাদের আমলসমূহ হতে কিছুই হ্রাস করা হবে না; নিশ্চয় আল্লাহ ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু। হুজরাত, ৪৯/১৪
ﻳُﺼْﻠِﺢْ ﻟَﻜُﻢْ ﺃَﻋْﻤَﺎﻟَﻜُﻢْ ﻭَﻳَﻐْﻔِﺮْ ﻟَﻜُﻢْ ﺫُﻧُﻮﺑَﻜُﻢْ ﻭَﻣَﻦْ ﻳُﻄِﻊِ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟَﻪُ ﻓَﻘَﺪْ ﻓَﺎﺯَ ﻓَﻮْﺯًﺍ ﻋَﻈِﻴﻤًﺎ
তিনি তোমাদের জন্য তোমাদের আমলসমুহ সংশোধন করবেন এবং তিনি তোমাদের জন্য তোমাদের পাপসমূহ ক্ষমা করবেন; আর যে আল্লাহর ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য করবে অবশ্যই সে মহাসাফল্য অর্জন করবে। আল-আহযাব, ৩৩/৭১
ﻭَﻣَﻦْ ﻳَﻘْﻨُﺖْ ﻣِﻨْﻜُﻦَّ ﻟِﻠَّﻪِ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟِﻪِ ﻭَﺗَﻌْﻤَﻞْ ﺻَﺎﻟِﺤًﺎ ﻧُﺆْﺗِﻬَﺎ ﺃَﺟْﺮَﻫَﺎ ﻣَﺮَّﺗَﻴْﻦِ ﻭَﺃَﻋْﺘَﺪْﻧَﺎ ﻟَﻬَﺎ ﺭِﺯْﻗًﺎ ﻛَﺮِﻳﻤًﺎ
আর তোমাদের মধ্যে যে কেউ আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য করবে এবং সৎকর্ম করবে আমি তাকে দুবার প্রতিদান দেব আর আমি তার জন্য প্রস্তুত করে রেখেছি সম্মানজনক জীবিকা। আল-আহযাব, ৩৩/৩১
>>> তারা থাকবে নবীদের সাথে <<<
ﻭَﻣَﻦْ ﻳُﻄِﻊِ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝَ ﻓَﺄُﻭﻟَﺌِﻚَ ﻣَﻊَ ﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﺃَﻧْﻌَﻢَ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻋَﻠَﻴْﻬِﻢْ ﻣِﻦَ ﺍﻟﻨَّﺒِﻴِّﻴﻦَ ﻭَﺍﻟﺼِّﺪِّﻳﻘِﻴﻦَ ﻭَﺍﻟﺸُّﻬَﺪَﺍﺀِ ﻭَﺍﻟﺼَّﺎﻟِﺤِﻴﻦَ ﻭَﺣَﺴُﻦَ ﺃُﻭﻟَﺌِﻚَ ﺭَﻓِﻴﻘًﺎ
আর যে কেউ আল্লাহ ও রাসুলের আনুগত্য করবে, সে থাকবে ঐসব লোকদের সাথে যাদের উপর আল্লাহ অনুগ্রহ করেছেন, (তারা হল) নবীগন, সত্যবাদীগণ, শহীদগন ও সৎকর্ম শীলদের সাথে; আর সাথী হিসেবে তারা হবে কতই উত্তম! আন-নিসা, ৪/৬৯
>>> রাসূলের অনুসরনে রয়েছে জান্নাত <<<
ﻭَﻣَﻦْ ﻳُﻄِﻊِ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟَﻪُ ﻳُﺪْﺧِﻠْﻪُ ﺟَﻨَّﺎﺕٍ ﺗَﺠْﺮِﻱ ﻣِﻦْ ﺗَﺤْﺘِﻬَﺎ ﺍﻷﻧْﻬَﺎﺭُ ﺧَﺎﻟِﺪِﻳﻦَ ﻓِﻴﻬَﺎ ﻭَﺫَﻟِﻚَ ﺍﻟْﻔَﻮْﺯُ ﺍﻟْﻌَﻈِﻴﻢُ
আর যে আল্লাহর ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য করবে, তিনি তাকে জান্নাতে প্রবেশ করাবেন যার তলদেশে নহরসমূহ প্রবাহিত, সেখানে তারা চিরকাল থাকবে, আর এটাই মহাসফলতা। আন-নিসা, ৪/১৩
ﻭَﻣَﻦْ ﻳُﻄِﻊِ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟَﻪُ ﻳُﺪْﺧِﻠْﻪُ ﺟَﻨَّﺎﺕٍ ﺗَﺠْﺮِﻱ ﻣِﻦْ ﺗَﺤْﺘِﻬَﺎ ﺍﻷﻧْﻬَﺎﺭُ ﻭَﻣَﻦْ ﻳَﺘَﻮَﻝَّ ﻳُﻌَﺬِّﺑْﻪُ ﻋَﺬَﺍﺑًﺎ ﺃَﻟِﻴﻤًﺎ
আর যে আল্লাহর ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য করবে, তিনি তাকে জান্নাতে প্রবেশ করাবেন যার তলদেশে নহরসমুহ প্রবাহিত আর যে ব্যক্তি পিছনে ফিরে যাবে তিনি তাকে যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি দিবেন। আল-ফাতহ, ৪৮/১৭
>>>> সকল মানুষ রাসূলের অনুসরণ করবে না <<<<
ﻭَﺇِﺫَﺍ ﺩُﻋُﻮﺍ ﺇِﻟَﻰ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟِﻪِ ﻟِﻴَﺤْﻜُﻢَ ﺑَﻴْﻨَﻬُﻢْ ﺇِﺫَﺍ ﻓَﺮِﻳﻖٌ ﻣِﻨْﻬُﻢْ ﻣُﻌْﺮِﺿُﻮﻥَ ﻭَﺇِﻥْ ﻳَﻜُﻦْ ﻟَﻬُﻢُ ﺍﻟْﺤَﻖُّ ﻳَﺄْﺗُﻮﺍ ﺇِﻟَﻴْﻪِ ﻣُﺬْﻋِﻨِﻴﻦَ
আর যখন তাদেরকে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের দিকে আহবান করা হয় যাতে করে তাদের মাঝে পারস্পরিক বিচার মীমাংসা করা যায় তখন তাদের মধ্যে একটি দল মুখ ফিরিয়ে নেয়। আর সত্য যদি তাদের অনুকুলে হয় তাহলে পূর্ণ বিনয়ী হয়ে তারা তাঁর দিকে ছুটে আসে। আন-নুর, ২৪/৪৮-৪৯
ﻭَﺇِﺫَﺍ ﻗِﻴﻞَ ﻟَﻬُﻢْ ﺗَﻌَﺎﻟَﻮْﺍ ﺇِﻟَﻰ ﻣَﺎ ﺃَﻧْﺰَﻝَ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻭَﺇِﻟَﻰ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝِ ﺭَﺃَﻳْﺖَ ﺍﻟْﻤُﻨَﺎﻓِﻘِﻴﻦَ ﻳَﺼُﺪُّﻭﻥَ ﻋَﻨْﻚَ ﺻُﺪُﻭﺩًﺍ
আর যখন তাদেরকে বলা হয়, ‘তোমরা আল্লাহ যা নাযিল করেছেন তার দিকে এবং রাসূলের দিকে আস’, তখন মুনাফিকদেরকে দেখবেন তারা আপনার কাছ থেকে সম্পূর্ণ রূপে ফিরে যাচ্ছে। আন-নিসা, সুরা-৪/৬১
>>> রাসূল ছাড়া অন্য কারো আনুগত্য করতে নিষেধ করা হয়েছে <<<
ﻭَﺇِﻥَّ ﺍﻟﺸَّﻴَﺎﻃِﻴﻦَ ﻟَﻴُﻮﺣُﻮﻥَ ﺇِﻟَﻰ ﺃَﻭْﻟِﻴَﺎﺋِﻬِﻢْ ﻟِﻴُﺠَﺎﺩِﻟُﻮﻛُﻢْ ﻭَﺇِﻥْ ﺃَﻃَﻌْﺘُﻤُﻮﻫُﻢْ ﺇِﻧَّﻜُﻢْ ﻟَﻤُﺸْﺮِﻛُﻮﻥَ
আর নিশ্চয় শয়তানেরা তাদের বন্ধুদেরকে প্ররোচনা দিতে থাকে যাতে তারা তোমাদের সাথে বিবাদ করে; আর যদি তোমরা তাদের (আকীদা-বিশ্বাসে ও কাজ-কর্মে) আনুগত্য কর তাহলে নিঃসন্দেহে তোমরাও মুশরিক হয়ে যাবে। আল-আন‘আম, ৬/১২১
ﻳَﺎ ﺃَﻳُّﻬَﺎ ﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﺁﻣَﻨُﻮﺍ ﺇِﻥْ ﺗُﻄِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﻛَﻔَﺮُﻭﺍ ﻳَﺮُﺩُّﻭﻛُﻢْ ﻋَﻠَﻰ ﺃَﻋْﻘَﺎﺑِﻜُﻢْ ﻓَﺘَﻨْﻘَﻠِﺒُﻮﺍ ﺧَﺎﺳِﺮِﻳﻦَ
হে মুমিনগণ, যারা অস্বীকার করে, তোমরা যদি তাদের আনুগত্য কর তাহলে তারা তোমরাদেরকে তোমাদের পূর্বাস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে যাবে; ফলে তোমরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে ফিরে যাবে। আলে-ইমরান, ৩/১৪৯
ﻓَﻼ ﺗُﻄِﻊِ ﺍﻟْﻜَﺎﻓِﺮِﻳﻦَ ﻭَﺟَﺎﻫِﺪْﻫُﻢْ ﺑِﻪِ ﺟِﻬَﺎﺩًﺍ ﻛَﺒِﻴﺮًﺍ
সুতরাং তুমি অস্বীকারকারীদের আনুগত্য করবে না আর তাদের সাথে কুরআনের সাহায্যে কঠোর সংগ্রাম কর। ফুরকান, ২৫/৫২
ﻭَﻻ ﺗُﻄِﻊِ ﺍﻟْﻜَﺎﻓِﺮِﻳﻦَ ﻭَﺍﻟْﻤُﻨَﺎﻓِﻘِﻲﻥَ ﻭَﺩَﻉْ ﺃَﺫَﺍﻫُﻢْ ﻭَﺗَﻮَﻛَّﻞْ ﻋَﻠَﻰ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﻭَﻛَﻔَﻰ ﺑِﺎﻟﻠَّﻪِ ﻭَﻛِﻴﻼ
আর তুমি কাফের ও মুনাফিকদের আনুগত্য করবে না ও তাদের নির্যাতন উপেক্ষা কর এবং আল্লাহর উপর ভরসা কর; তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে আল্লাহই যথেষ্ট।আহযাব, ৩৩/৪৮
ﻓَﻼ ﺗُﻄِﻊِ ﺍﻟْﻤُﻜَﺬِّﺑِﻴﻦَ
সুতরাং তুমি মিথ্যারোপকারীদের আনুগত্য করবে না। আল-কালাম, ৬৮/৮
ﻭَﻻ ﺗُﻄِﻊْ ﻛُﻞَّ ﺣَﻼﻑٍ ﻣَﻬِﻴﻦٍ
আর যে কথায় কথায় শপথ করে, যে লাঞ্ছিত, তার আনুগত্য করবে না। আল-কালাম, ৬৮/১০
ﻓَﺎﺻْﺒِﺮْ ﻟِﺤُﻜْﻢِ ﺭَﺑِّﻚَ ﻭَﻻ ﺗُﻄِﻊْ ﻣِﻨْﻬُﻢْ ﺁﺛِﻤًﺎ ﺃَﻭْ ﻛَﻔُﻮﺭًﺍ
সুতরাং তুমি তোমার রবের আদেশের জন্য ধৈর্য্য ধারন কর এবং ওদের মধ্যকার পাপিষ্ঠ কিংবা অস্বীকারকারীদের আনুগত্য করবে না। আল-ইনসান, ৭৬/২৪
>>> রাসূলের আনুগত্য অস্বীকারকারীদের বক্তব্য <<<
ﻭَﺇِﺫَﺍ ﻗِﻴﻞَ ﻟَﻬُﻢْ ﺗَﻌَﺎﻟَﻮْﺍ ﺇِﻟَﻰ ﻣَﺎ ﺃَﻧْﺰَﻝَ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻭَﺇِﻟَﻰ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝِ ﻗَﺎﻟُﻮﺍ ﺣَﺴْﺒُﻨَﺎ ﻣَﺎ ﻭَﺟَﺪْﻧَﺎ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﺁﺑَﺎﺀَﻧَﺎ ﺃَﻭَﻟَﻮْ ﻛَﺎﻥَ ﺁﺑَﺎﺅُﻫُﻢْ ﻻ ﻳَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ ﺷَﻴْﺌًﺎ ﻭَﻻ ﻳَﻬْﺘَﺪُﻭﻥَ
আর যখন তাদেরকে বলা হয়, ‘আল্লাহ যা অবতীর্ণ করেছেন তার দিকে আর রাসূলের দিকে আস’, তারা বলে, ‘আমাদের জন্য ওটাই যথেষ্ট, যার উপর আমাদের বাপ-দাদাদেরকে পেয়েছি’; যদিও তাদের বাপ-দাদারা কিছুই জানত না আর হেদায়াতপ্রাপ্ত ছিল না; তবুও কি? আল-মায়েদা, ৫/১০৪
>>> আল্লাহ ও তার রাসুলের ফয়সালাই চুড়ান্ত ফয়সালা <<<
ﻓَﻼ ﻭَﺭَﺑِّﻚَ ﻻ ﻳُﺆْﻣِﻨُﻮﻥَ ﺣَﺘَّﻰ ﻳُﺤَﻜِّﻤُﻮﻙَ ﻓِﻴﻤَﺎ ﺷَﺠَﺮَ ﺑَﻴْﻨَﻬُﻢْ ﺛُﻢَّ ﻻ ﻳَﺠِﺪُﻭﺍ ﻓِﻲ ﺃَﻧْﻔُﺴِﻬِﻢْ ﺣَﺮَﺟًﺎ ﻣِﻤَّﺎ ﻗَﻀَﻴْﺖَ ﻭَﻳُﺴَﻠِّﻤُﻮﺍ ﺗَﺴْﻠِﻴﻤًﺎ
তোমার রবের কসম! তারা মুমিন হতে পারবে না, যতক্ষণ না তাদের মধ্যে সৃষ্ট বিবাদের ব্যাপারে তোমাকে (রাসূলকে) বিচারক হিসেবে মেনে নেয়; অতঃপর তুমি যাহা ফয়সালা দেবে সে ব্যাপারে তাদের নিজেদের অন্তরে কোন দ্বিধা অনুভব না করে এবং পূর্ণ সম্মতিতে মেনে নেয়। আন-নিসা, ৪/৬৫
ﻭَﻣَﺎ ﻛَﺎﻥَ ﻟِﻤُﺆْﻣِﻦٍ ﻭَﻻ ﻣُﺆْﻣِﻨَﺔٍ ﺇِﺫَﺍ ﻗَﻀَﻰ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟُﻪُ ﺃَﻣْﺮًﺍ ﺃَﻥْ ﻳَﻜُﻮﻥَ ﻟَﻬُﻢُ ﺍﻟْﺨِﻴَﺮَﺓُ ﻣِﻦْ ﺃَﻣْﺮِﻫِﻢْ ﻭَﻣَﻦْ ﻳَﻌْﺺِ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟَﻪُ ﻓَﻘَﺪْ ﺿَﻞَّ ﺿَﻼﻻ ﻣُﺒِﻴﻨًﺎ
আর আল্লাহ ও তাঁর রাসূল কোন বিষয়ে ফয়সালা দিলে কোন মুমিন পুরুষ ও মুমিন নারীর জন্য নিজেদের ব্যাপারে অন্য কোন সিদ্ধান্তের এখতিয়ার থাকবে না; আর যে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলকে অমান্য করল সে স্পষ্টই পথভ্রষ্ট হবে। আল-আহযাব, ৩৩/৩৬
ﻓَﺎﺗَّﻘُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﺻْﻠِﺤُﻮﺍ ﺫَﺍﺕَ ﺑَﻴْﻨِﻜُﻢْ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟَﻪُ ﺇِﻥْ ﻛُﻨْﺘُﻢْ ﻣُﺆْﻣِﻨِﻴﻦَ
সুতরাং আল্লাহকে ভয় কর এবং তোমাদের পরস্পরের মধ্যকার অবস্থা সংশোধন কর; এবং আল্লাহর ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য কর যদি তোমরা মুমিন হয়ে থাক। আন-আনফাল, ৮/১
ﻭَﻣَﺎ ﺁﺗَﺎﻛُﻢُ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝُ ﻓَﺨُﺬُﻭﻩُ ﻭَﻣَﺎ ﻧَﻬَﺎﻛُﻢْ ﻋَﻨْﻪُ ﻓَﺎﻧْﺘَﻬُﻮﺍ ﻭَﺍﺗَّﻘُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﺇِﻥَّ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﺷَﺪِﻳﺪُ ﺍﻟْﻌِﻘَﺎﺏِ
আর রাসুল তোমাদের যাহা দেন তা গ্রহন কর এবং যাহা নিষেধ করেন তা থেকে বিরত থাক এবং আল্লাহকেই ভয় কর, নিশ্চয় আল্লাহ শাস্তি প্রদানে কঠোর। আল-হাশর, ৫৯/৭
ﻳَﺎ ﺃَﻳُّﻬَﺎ ﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﺁﻣَﻨُﻮﺍ ﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝَ ﻭَﺃُﻭﻟِﻲ ﺍﻷﻣْﺮِ ﻣِﻨْﻜُﻢْ ﻓَﺈِﻥْ ﺗَﻨَﺎﺯَﻋْﺘُﻢْ ﻓِﻲ ﺷَﻲْﺀٍ ﻓَﺮُﺩُّﻭﻩُ ﺇِﻟَﻰ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﻭَﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝِ ﺇِﻥْ ﻛُﻨْﺘُﻢْ ﺗُﺆْﻣِﻨُﻮﻥَ ﺑِﺎﻟﻠَّﻪِ ﻭَﺍﻟْﻴَﻮْﻡِ ﺍﻵﺧِﺮِ ﺫَﻟِﻚَ ﺧَﻴْﺮٌ ﻭَﺃَﺣْﺴَﻦُ ﺗَﺄْﻭِﻳﻼ
হে মুমিনগণ, আল্লাহর আনুগত্য কর ও রাসূলের আনুগত্য কর আর তোমাদের মধ্যে যারা কর্তৃত্বের অধিকারী তাদের আনুগত্য কর; অতঃপর যদি কোন বিষয়ে তোমরা মতবিরোধ কর তাহলে তা আল্লাহ ও রাসূলের দিকে ফিরিয়ে দাও; যদি তোমরা আল্লাহ ও শেষ দিবসের প্রতি বিশ্বাস রাখ, এটাই কল্যানকর এবং শ্রেষ্ঠতর সমাধান। আন-নিসা, ৪/৫৯
>>> রাসূরকে অমান্য করার ফলাফল <<<
ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟَﻪُ ﻭَﻻ ﺗَﻨَﺎﺯَﻋُﻮﺍ ﻓَﺘَﻔْﺸَﻠُﻮﺍ ﻭَﺗَﺬْﻫَﺐَ ﺭِﻳﺤُﻜُﻢْ ﻭَﺍﺻْﺒِﺮُﻭﺍ ﺇِﻥَّ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻣَﻊَ ﺍﻟﺼَّﺎﺑِﺮِﻳﻦَ
আর আল্লাহর ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য কর এবং তোমরা পরস্পর ঝগড়া কর না তাহলে তোমরা সাহস হারিয়ে ফেলবে এবং তোমাদের প্রতিপত্তি শেষ হয়ে যাবে আর তোমরা ধৈর্য ধারণ কর; নিশ্চয় আল্লাহ ধৈর্যশীলদের সাথে আছেন। আন-আনফাল, ৮/৪৬
ﻻ ﺗَﺠْﻌَﻠُﻮﺍ ﺩُﻋَﺎﺀَ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝِ ﺑَﻴْﻨَﻜُﻢْ ﻛَﺪُﻋَﺎﺀِ ﺑَﻌْﻀِﻜُﻢْ ﺑَﻌْﻀًﺎ ﻗَﺪْ ﻳَﻌْﻠَﻢُ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﻳَﺘَﺴَﻠَّﻠُﻮﻥَ ﻣِﻨْﻜُﻢْ ﻟِﻮَﺍﺫًﺍ ﻓَﻠْﻴَﺤْﺬَﺭِ ﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﻳُﺨَﺎﻟِﻔُﻮﻥَ ﻋَﻦْ ﺃَﻣْﺮِﻩِ ﺃَﻥْ ﺗُﺼِﻴﺒَﻬُﻢْ ﻓِﺘْﻨَﺔٌ ﺃَﻭْ ﻳُﺼِﻴﺒَﻬُﻢْ ﻋَﺬَﺍﺏٌ ﺃَﻟِﻴﻢٌ
তোমরা পরস্পরকে যেভাবে ডাকো রাসূলকে সেভাবে ডেকো না; তোমাদের মধ্যে যারা চুপিসারে সরে পড়ে আল্লাহ তাদেরকে ভালভাবে জানেন; তারা তাঁর (রাসূলের) আদেশের বিরুদ্ধাচরণ করে তারা যেন তাদের উপর বিপর্য্য় নেমে আসে অথবা যন্ত্রনাদায়ক আযাব পৌঁছার ভয় করে। আন-নুর, ২৪/৬৩
>>>> রাসূলকে অমান্যকারীর শাস্তি জাহান্নাম <<<<
ﺇِﻻ ﺑَﻼﻏًﺎ ﻣِﻦَ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﻭَﺭِﺳَﺎﻻﺗِﻪِ ﻭَﻣَﻦْ ﻳَﻌْﺺِ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟَﻪُ ﻓَﺈِﻥَّ ﻟَﻪُ ﻧَﺎﺭَ ﺟَﻬَﻨَّﻢَ ﺧَﺎﻟِﺪِﻳﻦَ ﻓِﻴﻬَﺎ ﺃَﺑَﺪًﺍ
কেবলমাত্র আল্লাহর বাণী ও তাঁর রিসালত পৌঁছানোই তার দায়িত্ব আর যে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলকে অমান্য করবে অবশ্যই তার জন্য রয়েছে জাহান্নামের আগুন, তাতে তারা চিরকাল থাকবে। আল-জিন, ৭২/২৩
ﻭَﻣَﻦْ ﻳَﻌْﺺِ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺭَﺳُﻮﻟَﻪُ ﻭَﻳَﺘَﻌَﺪَّ ﺣُﺪُﻭﺩَﻩُ ﻳُﺪْﺧِﻠْﻪُ ﻧَﺎﺭًﺍ ﺧَﺎﻟِﺪًﺍ ﻓِﻴﻬَﺎ ﻭَﻟَﻪُ ﻋَﺬَﺍﺏٌ ﻣُﻬِﻴﻦٌ
যে আল্লাহ ও তার রাসূলকে অমান্য করবে এবং তাঁর সীমরেখা লঙ্ঘন করবে, তিনি তাকে আগুনে প্রবেশ করাবেন, সেখানে সে চিরকাল থাকবে; আর তার জন্যই রয়েছে অপমানজনক শাস্তি। আন-নিসা, ৪/১৪
ﻭَﻣَﻦْ ﻳُﺸَﺎﻗِﻖِ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝَ ﻣِﻦْ ﺑَﻌْﺪِ ﻣَﺎ ﺗَﺒَﻴَّﻦَ ﻟَﻪُ ﺍﻟْﻬُﺪَﻯ ﻭَﻳَﺘَّﺒِﻊْ ﻏَﻴْﺮَ ﺳَﺒِﻴﻞِ ﺍﻟْﻤُﺆْﻣِﻨِﻴﻦَ ﻧُﻮَﻟِّﻪِ ﻣَﺎ ﺗَﻮَﻟَّﻰ ﻭَﻧُﺼْﻠِﻪِ ﺟَﻬَﻨَّﻢَ ﻭَﺳَﺎﺀَﺕْ ﻣَﺼِﻴﺮًﺍ
আর যে রাসূলের বিরুদ্ধাচরণ করে, তার জন্য হিদায়াত স্পষ্ট হয়ে যাওয়ার পরও এবং মুমিনের পথের বিপরীত পথ অনুসরণ করে, আমি তাকে ফেরাব, যেদিকে সে ফিরে যেতে চায় এবং তাকে প্রবেশ করাব জাহান্নামে আর তা খুবই নিকৃষ্টতর আবাসস্থল। আন-নিসা, ৪/১১৫
>>> পরকালে হায়! আফসোস! করতে হবে <<<
ﻳَﻮْﻡَ ﺗُﻘَﻠَّﺐُ ﻭُﺟُﻮﻫُﻬُﻢْ ﻓِﻲ ﺍﻟﻨَّﺎﺭِ ﻳَﻘُﻮﻟُﻮﻥَ ﻳَﺎ ﻟَﻴْﺘَﻨَﺎ ﺃَﻃَﻌْﻨَﺎ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺃَﻃَﻌْﻨَﺎ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻻ ﻭَﻗَﺎﻟُﻮﺍ ﺭَﺑَّﻨَﺎ ﺇِﻧَّﺎ ﺃَﻃَﻌْﻨَﺎ ﺳَﺎﺩَﺗَﻨَﺎ ﻭَﻛُﺒَﺮَﺍﺀَﻧَﺎ ﻓَﺄَﺿَﻠُّﻮﻧَﺎ ﺍﻟﺴَّﺒِﻴﻼ ﺭَﺑَّﻨَﺎ ﺁﺗِﻬِﻢْ ﺿِﻌْﻔَﻴْﻦِ ﻣِﻦَ ﺍﻟْﻌَﺬَﺍﺏِ ﻭَﺍﻟْﻌَﻨْﻬُﻢْ ﻟَﻌْﻨًﺎ ﻛَﺒِﻴﺮًﺍ
যেদিন তাদের চেহারাগুলো আগুনে উলট পালট করা হবে; সেদিন তারা বলবেঃ ‘হায়! যদি আমরা আল্লাহর আনুগত্য করতাম এবং রাসূলের আনুগত্য করতাম’! তারা আরও বলবে ‘হে আমাদের রব! নিশ্চয় আমরা আমাদের সরদার ও মুরুব্বিদের মেনেছিলাম, ফলে তারা আমাদের পথভ্রষ্ট করেছিল’। হে আমাদের রব! ‘তাদেরকে দ্বিগুণ আযাব প্রদান করুন এবং তাদেরকে মহা অভিশাপে অভিশাপ্ত করুন’। আহযাব, ৩৩/৬৬-৬৮
>>> হায়! আমার আফসোস! যদি আমি রাসূলের পথ ধরতাম <<<
ﻭَﻳَﻮْﻡَ ﻳَﻌَﺾُّ ﺍﻟﻈَّﺎﻟِﻢُ ﻋَﻠَﻰ ﻳَﺪَﻳْﻪِ ﻳَﻘُﻮﻝُ ﻳَﺎ ﻟَﻴْﺘَﻨِﻲ ﺍﺗَّﺨَﺬْﺕُ ﻣَﻊَ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝِ ﺳَﺒِﻴﻼ ﻳَﺎ ﻭَﻳْﻠَﺘَﻰ ﻟَﻴْﺘَﻨِﻲ ﻟَﻢْ ﺃَﺗَّﺨِﺬْ ﻓُﻼﻧًﺎ ﺧَﻠِﻴﻼ ﺃَﺿَﻠَّﻨِﻲ ﻋَﻦِ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺑَﻌْﺪَ ﺇِﺫْ ﺟَﺎﺀَﻧِﻲ ﻭَﻛَﺎﻥَ ﺍﻟﺸَّﻴْﻄَﺎﻥُ ﻟِﻺﻧْﺴَﺎﻥِ ﺧَﺬُﻭﻻ ﻭَﻗَﺎﻝَ ﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝُ ﻳَﺎ ﺭَﺏِّ ﺇِﻥَّ ﻗَﻮْﻣِﻲ ﺍﺗَّﺨَﺬُﻭﺍ ﻫَﺬَﺍ ﺍﻟْﻘُﺮْﺁﻥَ ﻣَﻬْﺠُﻮﺭًﺍ
আর সেদিন অপরাধী নিজের দুই হাত কামড়িয়ে বলবে, ‘হায় আমার আফসোস! যদি আমি রাসূলের পথ ধরতাম। হায়! আমার দুর্ভোগ! আমার আফসোস! যদি আমি অমুককে বন্ধুরূপে গ্রহণ না করতাম’। অবশ্যই সে আমাকে বিভ্রান্ত করেছিল আমার নিকট উপদেশ বাণী কুরআন পৌঁছার পর; আর শয়তান হল মানুষের জন্যে মহাপ্রতারক। আর রাসূল বলবে, ‘হে আমার রব, অবশ্যই আমার জাতির লোকেরা এই কুরআনকে পরিত্যাজ্য গণ্য করেছিল। ফুরকান, ২৫/২৭-৩০
>>>>> রাসূলের অনুসরণের ফলাফল <<<<<
ﻭَﺃَﻃِﻴﻌُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻭَﺍﻟﺮَّﺳُﻮﻝَ ﻟَﻌَﻠَّﻜُﻢْ ﺗُﺮْﺣَﻤُﻮﻥَ
আল্লাহর ও রাসূলের আনুগত্য কর, যাতে তোমরা রহমতপ্রাপ্ত হও। আলে-ইমরান, ৩/১৩২
ﻭَﺳَﺎﺭِﻋُﻮﺍ ﺇِﻟَﻰ ﻣَﻐْﻔِﺮَﺓٍ ﻣِﻦْ ﺭَﺑِّﻜُﻢْ ﻭَﺟَﻨَّﺔٍ ﻋَﺮْﺿُﻬَﺎ ﺍﻟﺴَّﻤَﺎﻭَﺍﺕُ ﻭَﺍﻷﺭْﺽُ ﺃُﻋِﺪَّﺕْ ﻟِﻠْﻤُﺘَّﻘِﻴﻦَ
আর তোমরা দ্রুত অগ্রসর হও তোমাদের রবের ক্ষমা ও জান্নাতের দিকে, যার প্রশস্ততা আসমানসমূহ ও যমীনের সমান, যা মুত্তাকীদের জন্য তৈরী করা হয়েছে। আলে-ইমরান, ৩/১৩৩
ﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﻳُﻨْﻔِﻘُﻮﻥَ ﻓِﻲ ﺍﻟﺴَّﺮَّﺍﺀِ ﻭَﺍﻟﻀَّﺮَّﺍﺀِ ﻭَﺍﻟْﻜَﺎﻇِﻤِﻴﻦَ ﺍﻟْﻐَﻴْﻆَ ﻭَﺍﻟْﻌَﺎﻓِﻴﻦَ ﻋَﻦِ ﺍﻟﻨَّﺎﺱِ ﻭَﺍﻟﻠَّﻪُ ﻳُﺤِﺐُّ ﺍﻟْﻤُﺤْﺴِﻨِﻴﻦَ
যারা সচ্ছল ও অসচ্ছল অবস্থায় ব্যয় করে আর রাগ দমনকারী ও মানুষের প্রতি ক্ষমাশীল এবং আল্লাহ নেকলোকদের ভালবাসেন। আলে-ইমরান, ৩/১৩৪
ﻭَﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﺇِﺫَﺍ ﻓَﻌَﻠُﻮﺍ ﻓَﺎﺣِﺸَﺔً ﺃَﻭْ ﻇَﻠَﻤُﻮﺍ ﺃَﻧْﻔُﺴَﻬُﻢْ ﺫَﻛَﺮُﻭﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻓَﺎﺳْﺘَﻐْﻔَﺮُﻭﺍ ﻟِﺬُﻧُﻮﺑِﻬِﻢْ ﻭَﻣَﻦْ ﻳَﻐْﻔِﺮُ ﺍﻟﺬُّﻧُﻮﺏَ ﺇِﻻ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻭَﻟَﻢْ ﻳُﺼِﺮُّﻭﺍ ﻋَﻠَﻰ ﻣَﺎ ﻓَﻌَﻠُﻮﺍ ﻭَﻫُﻢْ ﻳَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ
আর যারা কোন অশ্লীল কাজ করে ফেলে কিংবা তাদের নিজের উপর জুলুম করে ফেলে তখনই আল্লাহকে স্মরণ করে অতঃপর তাদের পাপের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করে, আল্লাহ ছাড়া আর কে আছে যে পাপসমূহ ক্ষমা করতে পারেন? তারা যা করে ফেলেছে, জেনে শুনে তার পুনরাবৃত্তি করে না। আলে-ইমরান, ৩/১৩৫
ﺃُﻭﻟَﺌِﻚَ ﺟَﺰَﺍﺅُﻫُﻢْ ﻣَﻐْﻔِﺮَﺓٌ ﻣِﻦْ ﺭَﺑِّﻬِﻢْ ﻭَﺟَﻨَّﺎﺕٌ ﺗَﺠْﺮِﻱ ﻣِﻦْ ﺗَﺤْﺘِﻬَﺎ ﺍﻷﻧْﻬَﺎﺭُ ﺧَﺎﻟِﺪِﻳﻦَ ﻓِﻴﻬَﺎ ﻭَﻧِﻌْﻢَ ﺃَﺟْﺮُ ﺍﻟْﻌَﺎﻣِﻠِﻴﻦَ
এরাই তারা, যাদের প্রতিদান তাদের রবের পক্ষ হতে ক্ষমা ও জান্নাত, যার তলদেশে নহরসমূহ প্রবাহিত হবে, তারা সেখানে চিরকাল থাকবে, আর আমলকারীদের প্রতিদান কতই না উত্তম! আলে-ইমরান, ৩/১৩৬

Check Also

জিনেরা কি গায়েব জানে?

জিনেরা গায়েব জানে না। আল্লাহ ব্যতীত আকাশ-জমিনের কোন মাখলুকই গায়েবের খবর রাখে না। আল্লাহ বলেনঃ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *