শিরোনাম :
প্রচ্ছদ / Top 10 / মেয়েটির বাবা ডুকরে কেদে উঠলেন।

মেয়েটির বাবা ডুকরে কেদে উঠলেন।

একজন বৃদ্ধ শায়খ গল্পটা শুনিয়েছেন। যিনি আরবের একটি মসজিদের ইমাম। তিনি বলেন-একদিন ফজর নামাজ পড়ে বসে আছি এমন সময় তেরো চৌদ্দ বছরের একটি বালক দৌঁড়ে আসল হন্তদন্ত হয়ে। হাফাতে হাফাতে সে আমাকে বলল,আমার আব্বা দ্রুত আপনাকে আমাদের বাসায় নিয়ে যেতে বলেছেন।
.
আমি তার সাথে দ্রুতপদে তাদের বাসায় গেলাম। দেখলাম,ছেলেটির বাবা আমার অপেক্ষায় দাডিয়ে আছে। পঞ্চাশোর্ধ একজন লোক। অস্থির হয়ে আমাকে তিনি বললেন, হুজুর! আমার মেয়ে মৃত্যুপথযাত্রী। তাকে একটু তালকীন করুন।
.
আমি ঘরের ভেতর প্রবেশ করলাম। দেখলাম বোরকাবৃত করে রাখা হয়েছে তরুণী মেয়েটিকে। তার অবস্থা দেখেই বুঝতে পারলাম আরবেশি সময় বাকি নেই। শেষ নিঃশ্বাস গুলো শেষ হতে যতক্ষণ। আমি অত্যন্ত আগ্রহ নিয়ে বললাম, মা! বলো- লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসূলুল্লাহ কয়েকবার এভাবে তালকীন করলাম।
.
সে কালিমা তো পড়লোই না, উল্টো চিৎকার করে আমাকে বলল, আমার বুক ভেঙ্গে আসছে, আমার পাজরের হাড্ডিগুলো মচরে যাচ্ছে।
.
আমি আবার কালিমার তালকিন করলাম। এবার সে এমন একটি বাক্য বলল যা বজ্রের মতো শোনাল আমার কানে। মেয়েটি বলল, ঐ যে আমার জাহান্নাম আমাকে দেখানো হচ্ছে। খোদার কসম আমি আমার দোযখ দেখতে পাচ্ছি।
.
এ-কয়টা কথা বলেই সে চলে গেল। হয়তো যে ভয়ংকর স্থান তাকে দেখানো হয়েছিল সেদিকেই নিয়ে যাওয়া হলো কিশোরিমেয়েটির রুহকে। কারণ, যে যে স্থানের অধিবাসী মৃত্যুর পূর্বে তাকে সে স্থানটিই দেখানো হয়।
.
আমি প্রচণ্ড আঘাত পেলাম।ভয়ে দেহ কাপতে লাগল। মনটা বিষণ্ন হয়ে উঠল। এমন একজন মানুষকে আমাকে দেখানো হলো যে কি না জাহান্নামে যাচ্ছে। আমাদেরকে জানিয়ে। এর চেয়ে দুঃখের ও আক্ষেপের বিষয় আর কী হতে পারে!
.
আমি সবিনয়ে তার বাবাকে জিজ্ঞেস করলাম,আচ্ছা ভাই! সে কী এমন করতো যে জন্য আজ তার এমন ভয়াবহ পরিণতি হলো?
.
মেয়েটির বাবা ডুকরে কেদে উঠলেন। বললেন,হুজুর!আমার মেয়ে সবসময় কানে এয়ারফোন দিয়ে গানশুনতো।এই গান-বাজনায় ডুবে সে কোন এবাদতই করতো না।নামাজ- রোজার প্রতি তার ছিল প্রচণ্ড অনিহা।
.
বৃদ্ধ ইমাম সাহেব বলেন-বুঝতে পারলাম গুনাহ ও পাপের প্রতি নির্ভিক আসক্তি
ও এবাদতের প্রতি অবহেলা প্রদর্শনের কারণেই মৃত্যুর সময় কালিমা পড়ে দেয়ার পরও মেয়েটি কালিমা পড়তে পারছিল না। তার বুক সংকীর্ণ হয়ে ভেঙ্গে আসছিল।
.
যাদের গান শুনার শখ আছে তাদের কাছে অনুরোধ গান শুনা থেকে বিরত থাকুন। সেই সময় হেডফোন দিয়ে পবিত্র কোরআনের তেলওয়াত শুনুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *