শিরোনাম :
প্রচ্ছদ / অন্যান্য / আল্লাহ্ সম্পর্কে

আল্লাহ্ সম্পর্কে

আল্লাহর সাথে চুক্তি করে নযর মানা কি?

চুক্তিগত নযর মাকরুহ বা হারাম। কিন্তু যে নযরে চুক্তিহীন ইবাদত থাকে, তা মাকরুহ বা হারাম নয়। তার কথাই কুরআনে বলা হয়েছে, “নিশ্চয় সৎকর্মশীলরা পান করবে এমন পানীয় যার মিশ্রণ হবে কর্পূর। এমন একটি ঝরনা, যা হতে আল্লাহর দাসরা পান করবে, তারা এ (ঝরনা ইচ্ছামত) প্রবাহিত করবে। তারা মানত পূর্ণ করে ...

Read More »

আল্লাহ ছাড়া অন্য কিছুর কসম খাওয়া জায়েজ নয়। কুরআনের কসম খাওয়া জায়েজ কি?

কুরআন হল আল্লাহর কালাম। আর আল্লাহর কালাম হল তার সিফাত (গুন)। আর তার সিফাতের শপথ করা যায়। যেমন তার ইজ্জত, আজমত, কুদরত, কবরীয়া, জালাল ইত্যাদির কসম খাওয়া যায় এবং তার অসিলায় দুয়া ও আশ্রয় প্রার্থনা করা যায়। নদী (সঃ) বলেছেন, “একদা আইয়ুব (আঃ) উলঙ্গ হয়ে গোসল করছিলেন। অতঃপর তার উপর ...

Read More »

কাফফারা কিভাবে আদায় করা যাবে?

দশজন মিসকিনের মাধ্যম ধরনের খাবার তৈরি করে অথবা রাত্রে তাদেরকে ডেকে খাইয়ে দিন। অথবা তাদের বাড়িতে বাড়িতে পৌঁছে দিন। অথবা মাথাপিছু সওয়া এক কিলো করে (সর্বমোট সাড়ে বার কিলো) চাল তাদের মাঝে বণ্টন করে দিন। দশজন মিসকিন না পাওয়া গেলে পাঁচ জন মিসকিনকে দু’বেলা খাওয়ান অথবা আড়াই কিলো করে চাল ...

Read More »

কাউকে ‘আল্লাহর খলিফা’ বলা জায়েজ কি?

কাউকে আল্লাহর খলীফা বলা জায়েজ না। মানুষ আল্লাহর খলীফা হতে পারে না। বরং আল্লাহই মানুষের ‘খলীফা’ হতে পারেন; যেমন সফরের দুয়াতে আমরা বলে থাকি, ‘আন্তাস সাহিবু ফিসসাফার আলখালিফাতু ফিল আহলে।’ একদা আবু বকর সিদ্দিক (রাঃ) কে ‘আল্লাহর খলীফা বলা হলে, তিনি বলেছিলেন,  ‘আমি আল্লাহর খলীফা নই। বরং আমি আল্লাহর রাসুল ...

Read More »

মহান আল্লাহর কোন ফয়সালার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা কোন শ্রেণীর পাপ?

মহান আল্লাহ ইচ্ছাময় বাদশা। তিনি যা ইচ্ছা ফয়সালা করেন। বান্দার জন্য যে ফয়সালা করেন, তা তার জন্য মঙ্গলময়। তার কোন ফয়সালাতে জুলুম বা অন্যায় থাকে না। তিনি আমাকে গরীব আর আপনাকে ধনী বানিয়েছেন- এটা তার বেইনসাফি নয়। তিনি আপনার ছেলেকে সুস্থ সবল রেখেছেন এবং আমার ছেলেকে বিকলাঙ্গ বানিয়েছেন— এটা তার ...

Read More »

আল্লাহ ও তাঁর রাসুলের আজ্ঞাবহ ধার্মিকদের প্রতি বিদ্রূপ হানার হুকুম কি?

আল্লাহ ও তদীয় রাসুলের আজ্ঞাবহ ধর্মভীরু মুসলিমকে ধর্মের যথার্থ অনুগত হওয়ার কারণে বিদ্রূপ করা হারাম এবং তা মানুষের জন্য বড় বিপদজনক আচরণ। কারণ এ কথার আশংকা থাকে যে, ধর্মভীরুদেরকে তাঁর ঐ অবজ্ঞা তাঁদের আল্লাহর দ্বীনের উপর সুপ্রতিষ্ঠিত থাকাকে অবজ্ঞা করার ফল হতে পারে। তখন তাদেরকে ঠাট্টা ব্যঙ্গ করার অর্থই হবে, ...

Read More »

উল্কা বা তাঁরা ছুটার সাথে দুনিয়ার কোন ঘটনাঘটনের সম্পর্ক আছে কি?

উল্কা বা তাঁরা ছুটার সাথে দুনিয়ার কোন ঘটনা ঘটনের সম্পর্ক নেই। শয়তানকে তাঁরা ছুঁড়ে মারা হয়। মহান আল্লাহ বলেন, ‘আমি তোমাদের নিকটবর্তী আকাশকে নক্ষত্ররাজি দ্বারা সুশোভিত করেছি এবং একে প্রত্যেক বিদ্রোহী শয়তান হতে রক্ষা করেছি। ফলে, শয়তানরা ঊর্ধ্ব জগতের কিছু শ্রবণ করতে পারে না। ওদের ওপর সকল দিক হতে (উল্কা) ...

Read More »

আল্লাহ্‌র বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ, আল্লাহ্‌র কাজের সমালোচনা অথবা আল্লার কাজে দোষ বের করা বৈধ কি?

আল্লাহ্‌র বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ, আল্লাহ্‌র কাজের সমালোচনা অথবা আল্লাহ্‌র কোন দোষ বের করার অধিকার কোন বান্দার নেই। যেহেতু সকল বিধানে তিনি নিখুঁত বিধায়ক। “কেন” বলে অভিযোগ বা আপত্তি করার অবকাশ ও অধিকার নেই কারো। মহান আল্লাহ বলেন, আল্লাহ আদেশ করেন। তাঁর আদেশের সমালোচনা (পুনবিবেচনা) করার কেউ নেই এবং তিনি হিসাব গ্রহনে ...

Read More »

‘আল্লাহ আকাশ-পৃথিবীর জ্যোতি’ কথার অর্থ কি?

‘আল্লাহ আকাশ-পৃথিবীর জ্যোতি।’ (নুরঃ ৩৫) এর অর্থ হল, মহান আল্লাহ আকাশ-পৃথিবীকে জ্যোতির্ময় ও আলোকিত করেন। সুতরাং আকাশে যত আলো আছে, পৃথিবিতে যত রকমের আলো আছে এবং কিয়ামতে সে আলো হবে, সব কিছু তারই আলো, তারই জ্যোতি। অবশ্য তাঁর জ্যোতি দুই প্রকারঃ সৃষ্ট জ্যোতি। আর তা হল আকাশ-পৃথিবীর সে আলো আমরা ...

Read More »

মহান আল্লাহ তো সবই জানেন, তাহলে কিরামান-কাতেবীন দ্বারা লিখাবার যুক্তি কি?

মহান আল্লাহ বান্দার সকল আমল লিখে রাখছেন, কিয়ামতে তা বান্দার সামনে পেশ করবেন, তাঁর বিরুদ্ধে সাক্ষী মানা হবে, তাঁর আমল ওজন করা হবে, তাঁকে প্রশ্ন করা হবে ইত্যাদি, অথচ তিনি সব জানেন। যেহেতু বান্দাকে তিনি বুঝাতে চান যে, তিনি তাঁর প্রতি কোন অন্যায় করছেন না। বান্দা মিথ্যা বলে পার পেতে ...

Read More »