শিরোনাম :
প্রচ্ছদ / অন্যান্য / ইসলামী ইতিহাস

ইসলামী ইতিহাস

মহান আল্লাহর সর্বপ্রথম সৃষ্টি কি?

মহান আল্লাহ্‌র প্রথম সৃষ্টি কলম। মহানবী (সঃ) বলেছেন, নিশ্চয় আল্লাহ প্রথম যে জিনিস সৃষ্টি করেন, তা হল কলম। তিনি তাঁকে বললেন, ‘লিখো’। সে বলল, ‘প্রভু! কি লিখব?’ তিনি বললেন, ‘কিয়ামত পর্যন্ত প্র্যত্যেক জিনিসের ভাগ্য লিখো।’ ফুটনোটঃ৩৮ (আবূ দাউদ ৪৭০২, তিরমিযী ২১৫৫ নং)

Read More »

হযরত হুসাইন রাঃ এর জীবনী

★ হযরত ইমাম হোসাইন বিন আলীহযরত ইমাম হোসাইন বিন আলী আএই অনন্য ব্যক্তিত্ব। যিনি দীর্ঘদিন ধরে ইতিহাস ও ঐতিহাসিকদের চিন্তাচেতনাকে প্রবলভাবে আলোড়িত করে আসছেন। ভবিষ্যতেও এ আলোড়ন অব্যাহতথাকবে। তিনি এমন এক মহানচরিত্র যিনি ইসলামের ইতিহাসকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করে আছেন। যখনইতাঁর কথা আলোচনা করা হয় তখনই বিশ্বাসী মুসলমান নর নারীর অন্তর ...

Read More »

অমুসলিমদেরকে নিরাপত্তা ও আশ্রয়দানের ক্ষেত্রে নাবী (সাঃ) এর পবিত্র সুন্নাত

আল্লাহ্ তা‘আলা বলেন- وَإِمَّا تَخَافَنَّ مِنْ قَوْمٍ خِيَانَةً فَانْبِذْ إِلَيْهِمْ عَلَى سَوَاءٍ إِنَّ اللهَ لا يُحِبُّ الْخَائِنِينَ ‘‘আর যদি কখনও কোন সম্প্রদায়ের পক্ষ হতে খেয়ানতের আশঙ্কা থাকে তাহলে তাদের চুক্তি তাদের দিকেই ছুuঁড় ফেলে দাও, যাতে তারা এবং তোমরা সমান হয়ে যাও। নিশ্চয়ই আল্লাহ্ পছন্দ করেন না খেয়ানতকারীদেরকে’’।[1] নাবী (সাঃ) ...

Read More »

বদনযর থেকে বাঁচার উপায়

বদনযর লাগার আগেই সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেয়াতে কোন দোষ নেই। এটা আল্লাহর উপর ভরসা করার পরিপন্থীও নয়। কারণ আল্লাহর উপর পরিপূর্ণভাবে ভরসার স্বরূপ হল বান্দা বৈধ উপকরণ অবলম্বন করে বদনযর ইত্যাদি থেকে বেঁচে থাকার চেষ্টা করবে এবং সেই সাথে আল্লাহর উপর ভরসা করবে। নাবী (সাঃ) হাসান-হুসাইন (রাঃ) কে এই বাক্যগুলো দিয়ে ...

Read More »

কেউ যদি মনে করে যে, তার পক্ষ হতে মানুষের উপর বদনযর লেগে যাচ্ছে তাহলে করণীয় কী?

কেউ যদি আশঙ্কা করে যে, তার চোখে দোষ আছে এবং মানুষের উপর তার বদনযর লেগে যায়, তাহলে তার উচিৎ হল সে নিজেই নিজের চোখের অকল্যাণ দূর করার চেষ্টা করবে। সুতরাং কারও ভাল দেখে সে যেন এই দু’আ পাঠ করে, اللّٰهُمَّ  بَارِكْ عليه `হে আল্লাহ! তুমি তার উপর বরকত নাযিল কর, তাকে ও ...

Read More »

তিবেব নববী বা শারীরিক চিকিৎসায় নাবী (সাঃ) এর হিদায়াত

আল্লামা ইবনুল কাইয়্যিম (রহঃ) বলেন- এ পর্যন্ত আমরা নাবী (সাঃ)-এর পবিত্র জীবনীর বিভিন্ন দিক, ইবাদতের মধ্যে তাঁর সুন্নাতে তাইয়্যেবা এবং আল্লাহর দ্বীন প্রতিষ্ঠায় তাঁর জিহাদগুলোর বিবরণ পেশ করেছি। এখন আমরা কয়েকটি পর্বে নাবী (সাঃ) এর ঐ সমস্ত চিকিৎসা ব্যবস্থার কথা উল্লেখ করব, যা তিনি নিজে গ্রহণ করেছেন এবং অন্যদেরকে গ্রহণ ...

Read More »

তাবুক থেকে ফেরত এসে আবু বকর (রাঃ) কে হজ্জের আমীর বানিয়ে মক্কায় প্রেরণ

ঐতিহাসিক ইবনে ইসহাক (রহঃ) বলেন- রসূল (সাঃ) তাবুক হতে ফেরত এসে রামাযানের বাকী দিনগুলো, শাওয়াল মাস এবং যুল-কাদ মাস মদ্বীনাতে কাটালেন। অতঃপর নবম হিজরী সালে আবু বকর (রাঃ) এর নের্তৃত্বে মুসলিমদেরকে মক্কায় পাঠালেন। যাতে করে তিনি মুসলিমদের হজ্জের কার্যাবলী পরিচালিত করতে পারেন। আবু বকর (রাঃ) তিনশত লোক নিয়ে বের হয়ে ...

Read More »

কাব (রাঃ) এর ঘটনায় যে সমস্ত শিক্ষণীয় বিষয় জানা যায়

হে প্রিয় ভাই! আল্লাহ্ তা‘আলা আমাকে ও আপনাকে সঠিক কথা জানার এবং তার অনুসরণ করার তাওফীক দিন। জেনে রাখুন! কা’ব বিন মালেক (রাঃ) এর ঘটনা থেকে নিম্নলিখিত বিষয়গুলো জানা যায়- মুসলমানের গীবত করা হলে গীবতকারীর প্রতিবাদ করা মুস্তাহাব। যেমন করেছিলেন মুআয বিন জাবাল (রাঃ)    পরিস্থিতি যতই জটিল হোক, সদা সত্য ...

Read More »

কাব বিন মালেক (রাঃ) এবং তাঁর সাথীদের ঘটনা

কা’ব বিন মালেক (রহঃ) বলেন- নাবী (সাঃ) যত যুদ্ধ করেছেন, তাবুক যুদ্ধ ব্যতীত তার সবগুলোতেই আমি শরীক ছিলাম। তবে এর আগে আমি বদরের যুদ্ধেও অনুপস্থিত ছিলাম। বদরের যুদ্ধে যারা অনুপস্থিত ছিল, তাদের কাউকেই তিনি দোষারোপ করেন নি। কারণ তিনি বের হয়েছিলেন কুরাইশদের একটি বাণিজ্যিক কাফেলাকে ধরার জন্য। পরিশেষে আল্লাহ্ তা‘আলা ...

Read More »

তাবুক যুদ্ধের ঘটনা থেকে যে সমস্ত বিধি-বিধান জানা যায়

হারাম মাসে যুদ্ধ করা জায়েয আছে। বিশেষ করে যদি রজব মাসে তাবুকের দিকে বের হওয়ার ঘটনা সহীহ হয়ে থাকে। এখানে আরেকটি কথা হচ্ছে তাবুকের অভিযান ছিল খৃষ্টানদের বিরুদ্ধে। তারা অন্যান্য আরব গোত্রের ন্যায় হারাম মাসের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করতনা। মুসলমানদের ইমামের কর্তব্য হল তিনি সকল মুসলিমকে ঐ বিষয়গুলো জানিয়ে দিবেন, ...

Read More »