শিরোনাম :
প্রচ্ছদ / ইসলামের পাঁচ স্তম্ভ

ইসলামের পাঁচ স্তম্ভ

হজ্জের কাজগুলি হেঁটে করা উত্তম, নাকি সওয়ার হয়ে করা উত্তম?

সওয়াব হয়ে হজ্জ করাই উত্তম। যেহেতু মহানবী (সঃ) সওয়ার হয়েই হজ্জ করেছেন। যদি পায়ে হেঁটে হজ্জ করা উত্তম হতো, তাহলে নিশ্চয় তিনি সওয়ার হয়ে হজ্জ করতেন না। ৪৫৪ (আলবানী, সিঃ যয়ীফাহ ৪৯৫ নং)

Read More »

হজ্জ করার পর যদি কোন মুসলিম ‘মুরতাদ্দ’ হয়ে যায়, তারপর আবার তওবা করে ইসলামে ফিরে আসে, তাহলে কি তার প্রথম হজ্জ বাতিল হয়ে যাব এবং তাকে দ্বিতীয়বার হজ্জ করতে হবে?

তার প্রথম হজ্জ বাতিল হবে যাবে না এবং তাকে দ্বিতীয়বার হজ্জ করতে হবে না। ৪৫৩ (আলবানী, সিঃ সহীহাহ ২৪৮ নং)

Read More »

তওয়াফ চত্বরে কোন কোন জামাআতের দেখা যায়, তারা তাদের মহিলাদেরকে পরপুরুষের দেহ স্পর্শ থেকে বাঁচাতে হাতে হাত দিয়ে ঘিরে রাখে। ফলে তাদের কারো কারো বুক বা পিঠ কাবার দিকে হয়। তাদের তওয়াফ কি শুদ্ধ হবে?

তওয়াফের সময় শর্ত ও ওয়াজেব হল কাবা তয়াফকারীর বাম দিকে থাকবে। অতএব যারা কাবাকে সামনে অথবা পিছনে করে তওয়াফ করবে তাদের তওয়াফ শুদ্ধ হবে না, বিধায় তাদের হজ্জ বা উমরাহও শুদ্ধ হবে না। ৪৪৯(ইবনে উষাইমীন)

Read More »

হজ্জ কবুল হওয়ার কোন স্পষ্ট আলামত আছে কি?

হজ্জ কবুল হওয়ার স্পষ্ট আলামত হল, হাজীর জীবনের অমুল পরিবর্তন। হজ্জের পূর্বের অবস্থা থেকে যদি পরের অবস্থা ভাল হয়, তাহলে জানতে হবে, তার হজ্জ কবুল হয়েছে। ৪৪৮ (ইবনে উষাইমীন)

Read More »

ইহরাম সিলাইকৃত কাপড়ে পরা নিষেধ। কাপড়ে সে কোন সিলাই হলেই কি তা পরা যাবে না?

সিলাইকৃত কাপড় মানে হল, যা দেহের অঙ্গসমূহের মাপে কেটে জামা ও পায়জামা আকারে সিলাই করা হয়। কাটা লুঙ্গি বা চাদর সিলাই থাকা দোষ নয়। ফেটে বা ছিঁড়ে গেলে তা সিলাই করাও দোষ নয়। বেল্ট, ঘড়ি, ব্যাগ বা জুতার সিলাই থাকলে তা পরা দূষণীয় নয়। ৪৪৭ (ইবনে বায)

Read More »

উমরাহ করার পর বিদায়ের সময় বিদায়ী তওয়াফ করা ওয়াজেব কি?

যদি উমরাহ করেই কেউ সাথে সাথে ফিরে আসে, তাহলে তাকে বিদায়ী তওয়াফ করতে হবে না, উমরাহ তওয়াফই যথেষ্ট। কিন্তু কেউ যদি উমরাহর পর দীর্ঘ সময় অবস্থান করে, তাহলে সঠিক মতে বিদায়ী তওয়াফ ওয়াজেব। কারণ (এক) নবী (সঃ) বলেছন, “তোমাদের কেউ যেন (কাবা)গৃহের সাথে শেষ সময় অতিবাহিত না করে প্রস্থান না ...

Read More »

এক শ্রেণীর হাজী আছে, যারা জোরেশোরে দুআ পড়ে। প্রত্যেক চক্করে নির্দিষ্ট ও নির্ধারিত দুআ পাঠ করে। একজন বলে, তার পিছনে সকলে বলে চলে। এতে ডিস্টার্ব হয় বড়। এ ব্যাপারে শরীয়তের বিধান কি?

পবিত্র কাবায় তওয়াফ একটি ইবাদত, যাতে আছে মহান আল্লাহ্‌র দরবারে বিনয় নম্রতা প্রকাশ। তওয়াফকারীর কর্তব্য হল, সত্য হৃদয় নিয়ে দুআ ও প্রশংসা, আশা, ভয় ও ভরসার সাথে আল্লাহ্‌র নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করা। কিন্তু তওয়াফের চক্করে চক্করে কোন নির্দিষ্ট দুআ বর্ণিত হয়নি। কেবল দুই পাথরের মধ্যবর্তী জায়গায় ‘রাব্বানা আ-তিনা’ দুআ বলতে ...

Read More »

মিনায় জায়গা না পেলে মক্কায় রাত্রি যাপনের অনুমতি আছে কি?

মিনায় জায়গা না পেলে মিনার লাগালাগি শেষ খীমার ধরে রাত্রিবাস করতে হবে। মক্কায় রাত্রিবাস করা বৈধ হবে না। যেমন মসজিদে জায়গা না পেলে মসজিদের লাগালাগি জায়গায় পাশাপাশি কাতার বেঁধে নামায পড়তে হবে। সে ক্ষেত্রে ঘরে গিয়ে নামায পড়লে চলবে না। ৪৪১ (ইবনে উষাইমীন)

Read More »

তাশরীকের একটা রাত অসুস্থতার কারণে মিনায় অবস্থান করা হয়নি। তাঁর জন্য কি দম দিতে হবে?

অসুস্থতা একটু ওজর। সুতরাং দম ওয়াজেব হবে না। প্রয়োজনের তাকীদে মিনায় রাত্রিবাস বর্জনে অনুমতি আছে। নবী (সঃ) পানি পরিবেশক ও পশু রক্ষকদেরকে মিনায় রাত্রিবাস বর্জনের অনুমতি দিয়েছিলেন। ৪৪০(ইবনে বায)

Read More »